“আমরা” ও “আমি” এই দুটি শব্দের ব্যবহার প্রসংগে —–

পবিত্র কোরআনে বেশ কিছু আয়াতে মহান আল্লাহ “আমরা’ শব্দটি ব্যবহার করেছেন ।

যেমন –
“– এবং আমরা তাদেরকে যে জীবনোপকরন দিয়েছি —- ” ।
সুরা – বাকারা / ৩ ।

এই রকম বেশ কিছু আয়াতে “আমরা” শব্দ ব্যবহার হয়েছে ।

মহান আল্লাহ যেখানে বলছেন যে , ওনার কোন শরীক বা অংশীদার নেই ।
তাহলে এই সব আয়াতগুলোতে কেন “আমরা” শব্দ ব্যবহার হয়েছে ?

স্বভাবতই মনে প্রশ্ন জাগে যে , মহান আল্লাহ কি কাউকে তাঁর কাজে অংশীদার করলেন !
তাহলে এটা কি শিরকের পর্যায় পড়ে গেল কিনা !
ইত্যাকার প্রশ্ন মনে আসাটাই স্বাভাবিক ।

পাঠক , আসুন জেনে নেই –

“আমরা’ ও “আমি” শব্দের ব্যবহারের নেপথ্য কারন –

মহান আল্লাহ যখন কোন কাজ অন্য কারও মাধ্যমে করান [ যেমন ফেরেশতাদের মাধ্যমে ] , তখন “আমরা” ও “আমাদের” শব্দ দুটি ব্যবহার করেছেন ।
আর যখন শুধুমাত্র নিজেকে পরিচয় করানোর সময় এবং নীতিগত কোন বিষয় ও সর্বোচ্চ হুকুমদাতার পরিচয় হিসাবে
“আমি’ শব্দটি ব্যবহার করেছেন ।

যেমন , সুরা বাকারার ৩ নং আয়াতে ” — আমরা তাদেরকে যে জীবনোপকরন দিয়েছি — ‘ ,
এই খানে যদি আল্লাহ বলতেন যে , ‘ — আমি তাদেরকে যে জীবনোপকরন দিয়েছি — ‘ ।

তাহলে পবিত্র কোরআন প্রত্যাখ্যানকারীগন বলত যে , “কোথায় আল্লাহ জীবনপোকরন দেন ? আমরা নিজেরা নিজেদের ফসল উৎপাদন করি । কারন আমরা নিজেরা দুই হাতে জমি চাষ করি , নিজ হাতে বীজ বুনি , নিজ যত্নে ফসল ফলাই , নিজ হাতে জমি থেকে ফসল তুলি , নিজ হাতে রান্না করি , নিজ হাতে খাবার খাই এবং বাচ্চা , পিতা মাতাকে খাওয়াই” ।

কিন্ত এরা যেসব মাধ্যমের সাহায্য নেয় যেমন – মাটি , আলো , বাতাস , বৃষ্টি , বীজ , গাছের প্রান , ফেরেশতাগন এবং আরো অনেক কিছু আছে যা সম্পূর্ন আল্লাহর অাদেশে মানুষকে সহযোগিতা করে । এসব মাধ্যমের সাথে আল্লাহ নিজেকে সম্পৃক্ত করে বুঝিয়েছেন যে , তাঁরই অদৃশ্য হুকুমে এসব গুলো কাজ করছে – স্বাধীনভাবে নয় ।
এসব অদৃশ্য মাধ্যমগুলোর সম্বন্বয় যে কাজগুলো সমাধা করেন কেবলমাত্র ঐ বিষয়গুলোতে মহান আল্লাহ “আমরা’ ও “আমাদের” এই শব্দ দুটি ব্যবহার করেছেন ।

অপরদিকে সর্বোচ্চ হুকুমদাতা বা নিজের একত্ববাদের কথা বলার সময় “আমি” শব্দটি যদি ব্যবহার না করতেন তাহলে মানুষ “আমরা’ শব্দটি দেখে ভাবত যে , আল্লাহ এক নয় , একাধিক ।

তাই মহান আল্লাহ ‘আমরা’ ও “আমি” দুটো শব্দের ব্যবহার তাঁর নিঁখুত প্রজ্ঞার পরিচয় দিয়েছেন ।

“— নিশ্চয়ই আমি পৃথিবীতে একজন খলীফা নিয়োগ দিতে যাচ্ছি — ” ।
সুরা – বাকারা / ৩০ ।
এখানে সম্পূর্ন নীতিগত একটি সিদ্বান্ত যেটা সম্পূর্ন আল্লাহর নিজস্ব এখতিয়ারভুক্ত বিষয় । এখানে আল্লাহ “আমি” শব্দটি ব্যবহার করেছেন ।

আশা করি বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন ।

শেয়ার করুন